কোজাগরী লক্ষ্মী পুজোর দিন এই কাজ গুলো করলে মা লক্ষ্মী অত্যন্ত রুষ্ট হন

অত্যন্ত

কোজাগরী লক্ষ্মী পুজোর দিন এই কাজ গুলো করলে মা লক্ষ্মী অত্যন্ত রুষ্ট হন। বাঙালি হিন্দু ঘরে লক্ষ্মী পুজো এক চিরন্তন উৎসব। অনেকেই সারা বছর প্রতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার লক্ষ্মী দেবীর আরাধনা করে থাকেন। এছাড়া শস্য সম্পদের দেবী বলে ভাদ্র সংক্রান্তি, পৌষ সংক্রান্তি, চৈত্র সংক্রান্তিতে এবং আশ্বিন পূর্ণিমা ও দীপাবলীতে লক্ষ্মীর পুজো হয়।

 

খারিফ শস্য ও রবি শস্য যেই সময় হয়, ঠিক সেই সময় বাঙালি মেতে ওঠে লক্ষ্মীর পুজোয়। তবে পুজোর উপাচার পরিবর্তন হয় মাস ভেদে। গত বছর ৩০ অক্টোবর পালিত হয়েছিল লক্ষ্মী পুজো। এই বছর লক্ষ্মীর পুজো পড়েছে দু’দিন। ১৯ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭.০৩ মিনিট থেকে ২০ অক্টোবর রাত ৮.২৬ মিনিট পর্যন্ত পূর্ণিমা তিথি থাকবে। এমন কিছু কাজ রয়েছে যা লক্ষ্মী পুজোর দিন বাড়িতে করতে নেই। যদি এই কাজগুলো বাড়িতে এই দিন করা হয় তা হলে মা লক্ষ্মী অত্যন্ত রুষ্ট হন।

 

আর ও   পড়ুন      কোজাগরী পূর্ণিমার নির্ঘণ্ট জেনে নিন

 

১। লক্ষ্মী পুজো করার সময় নিজেকেও লাল, গোলাপি, হলুদ, কমলা এই ধরনের রঙের বস্ত্র পরতে হবে। সাদা বা কালো বস্ত্র একেবারেই পরা যাবে না।

২। মা লক্ষ্মীর পুজোর সময় কোনও ভাবেই লোহার তৈরি বাসন ব্যবহার করা যাবে না।

৩। লক্ষ্মী পুজোর দিন কোনও ভাবে বাড়ি থেকে অন্য কাউকে চাল দিতে নেই।

৪। লক্ষ্মী দেবীকে কোনও ভাবে সাদা রঙের ফুল অর্পণ করা যাবে না। সাদা রঙ ছাড়া লাল, হলুদ, গোলাপি রঙের ফুল ব্যবহার করা যাবে।

৫। লক্ষ্মী দেবীর পুজোর সময় কোনও ভাবে তুলসী পাতা দেওয়া যাবে না।

৬। মা লক্ষ্মীর আসনে সাদা বা কালো কাপড় পাততে নেই, লাল, গোলাপি প্রভৃতি রঙের কাপড় ব্যবহার করতে হবে। এতে মা লক্ষ্মী অত্যন্ত সন্তুষ্ট হন।

৭। সাধারণত প্রায় সব পুজোর সময়ই কাঁসর ঘণ্টা বাজানো হয় কিন্তু মা লক্ষ্মীর পুজোয় ভুল করেও কাঁসর ঘণ্টা বাজানো যাবে না।