পুলিশ আসতে দেরী তাই রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

আসতে

পুলিশ আসতে দেরী তাই রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের। নেশার টাকা যোগাড় করতে চুরি ও ছিনতাই এর মতো অপরাধমূলক কাজকে বেঁছে নিয়েছেন তিন যুবক।তাই ব্যাটারি চুরি সন্দেহে তিন যুবককে আটক করে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নং ব্লকের মহেন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ভবানীপুর গ্রামবাসীরা। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার ভবানীপুর গ্রামে ভালুকাগামী রাজ্য সড়কে।ধৃত তিন যুবকের নাম জুনেদ আলম (১৮),মহম্মদ কুতুবুদ্দিন (২০) ও রাজু আলি(১৯)। তাদের বাড়ি ভবানীপুর গ্রামেই।এর আগেও ওই তিন যুবক কয়েকবার অন্যান্য এলাকায় চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছে।পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন এলাকাবাসী।

 

জানা যায় ধৃত ওই তিন যুবকের নামে থানায় একাধিক চুরির অভিযোগও রয়েছে।এমনকি মহম্মদ কুতুবুদ্দিন মাস ছয়েক আগে বাইক চুরির অভিযোগে তিন মাস আগে জেলও খেটে এসেছে। আরো জানা যায় শুক্রবার রাতে ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা সাহাজাহান আলি ও রুবেল আলি নামে দুই ব্যক্তির ট্রাক্টরের ব্যাটারি চুরি হয়ে যায় বলে খবর।গ্ৰামবাসীরা ওই তিন যুবককে সন্দেহবশত আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা সরাসরি চুরির ঘটনাটি অস্বিকার করে।

 

আর ও পড়ুন    বিয়ের অনুষ্ঠানে উচ্চ শব্দ সহ্য করতে না পেরে প্রান হারাল ৬৩টি মুরগি

 

হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় ফোন করলে পুলিশ আসতে বিলম্ব করলে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন গ্রামবাসীরা।দুই ঘণ্টা ধরে চলে বিক্ষোভ। রাস্তা অবরোধের জেরে যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। তারপর পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে তিন যুবককে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায় বলে খবর।এরপর গ্ৰামবাসীরা রাস্তা অবরোধ তুলে নেন।

 

আইসি সঞ্জয় কুমার দাস জানান চোর সন্দেহবশত তিন যুবককে গ্ৰামবাসীরা আটক করে নিজেরাই বিচার করতে চাইলে ফোনে পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীর বাকবিতণ্ডা হয়। তিন যুবককে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ হয়নি। ভয়ঙ্কর নেশার কবলে যুব সমাজ। আকৃষ্ট হচ্ছে কিশোর কিশোরীরাও। এ ধরনের প্রবণতা বৃদ্ধি পাওয়ায় অস্বস্তি বাড়ছে এলাকায়।