দিনভর চলবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি, কবে থেকে উন্নতি হবে আবহাওয়ার?

উন্নতি
উন্নতি

দিনভর চলবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি, কবে থেকে উন্নতি হবে আবহাওয়ার?  ফের দুর্যোগের ঘনঘটা রাজ্যের উপরে।   বঙ্গোসাগরে ঘনীভূত নিম্নচাপের জেরে আজও দক্ষিণবঙ্গে চলছে  ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। আকাশ রয়েছে মেঘলা। শহর  কলকাতা থেকে শুরু করে জেলায় জেলায় চলছে প্রবল বৃষ্টি।   নদিয়া, পুরুলিয়া, ভাঙড়, পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় সকাল থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে ভারী বৃষ্টি।

 

এদিকে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস মতে,  বঙ্গোসাগরে ঘনীভূত নিম্নচাপ ক্রমশ পরিণত হচ্ছে গভীর নিম্নচাপে। উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগর থেকে চাঁদবালির কাছে ওড়িশার স্থলভাগে প্রবেশ করেছে গভীর নিম্নচাপ। এটি ক্রমশ পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে এগিয়ে উত্তর ওড়িশা ও উত্তর ছত্রিশগড় এর দিকে যাবে। আজ সারাদিন ধরেই দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বইবে ঝোড়ো হাওয়া।

 

ঝড়ের সঙ্গেই দিনভর ভারী বৃষ্টিপাত চলবে। বুধবার থেকে অবস্থার কিছুটা উন্নতি ঘটবে। ঘণ্টায় ৭০ কিলোমিটার গতিবেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীরপুরের উপকূলবর্তী এলাকা গুলিতে।আবহাওয়াবিদদের জানিয়েছেন,  আজও রাজ্যজুড়ে চলবে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি। সারা দিনই আংশিক মেঘলা থাকবে আকাশ। তবে বুধবার থেকে পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে।

 

ইতিমধ্যেই কলকাতা সহ সন্নিহিত এলাকায় চলছে বৃষ্টি। দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়া, বাঁকুড়া, পূর্ব বর্ধমান, হুগলি, পুরুলিয়া জেলায় ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। উপকূলবর্তী জেলা গুলিতে আগাম সতর্কতা জারি করা হয়েছে। উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার গতিবেগে বইবে ঝোড়ো হাওয়া।

 

আর ও পড়ুন    ফের অনুরাগীদের নজর কাড়লেন শাহরুখ কন্যা সুহানা, কীভাবে?

 

নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তাল থাকবে সমুদ্র। আগামী বুধবার পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। সকাল থেকেই কলকাতায় শুরু হয়েছে। টানা বৃষ্টির জেরে শহরের একাধিক জায়গায় জল জমার আশঙ্কা বাড়ছে।

 

আজ সকাল থেকেই দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার  নামখানা, কাকদ্বীপ, পাথরপ্রতিমা, রায়দিঘি, কুলতলি, সাগরে এক নাগাড়ে চলছে বৃষ্টিপাত। উপকূলের জেলাগুলিতে বইছে ঝোড়ো হাওয়া। সমুদ্রে শুরু হয়ে গিয়েছে জলোচ্ছ্বাস। ৫০ কিলোমিটার গতিবেগে ঝোড়ো হাওয়া বইছে সমুদ্রে। নদী ও সমুদ্রের জোয়ারের জল ইতিমধ্যে ঢুকতে শুরু করেছে নামখানা, কাকদ্বীপ, পাথরপ্রতিমা, রায়দিঘির গ্রাম গুলিতে। হু হু করে ঢুকছে জল, ফলে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন গ্রামবাসীরা।

 

বাড়ি ছেড়ে আশ্রয় নিচ্ছেন ত্রাণ শিবিরে। বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের জেরে আগামী তিন-চারদিন ভারী বৃষ্টিপাত চলবে উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে। মৎসজীবীদের সমুদ্র উপকূলে যেতে নিষেধ করা হচ্ছে।