মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ১২২ জন চিকিৎসক নার্স করোনা আক্রান্ত

কলেজ

মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ১২২ জন চিকিৎসক নার্স করোনা আক্রান্ত।  মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ ও  হাসপাতালে ১২২ জন ডাক্তার ও নার্স করোনা সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েছেন । যার ফলে জটিল অস্ত্রোপচারের কাজ করতে একটু সমস্যা দেখা দিয়েছে। তবে চিকিৎসা পরিসেবা ঠিকভাবে চলছে বলে জানালেন মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডাক্তার পঞ্চানন কুন্ডু ।

 

তিনি বলেন একসঙ্গে ১২২ জন ডাক্তার ও নার্স করোনা সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েছে। সেই সঙ্গে আরও ২৪ জন ডাক্তার ও নার্সের করোনা সংক্রমনের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। যার ফলে কিছুটা সমস্যা হলেও চিকিৎসা পরিষেবা ঠিকভাবে চলছে। কিন্তু জটিল অস্ত্রপচারে ক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে কার্যত তিনি স্বীকার করে নিয়েছেন।

 

আর ও পড়ুন    কলকাতা বিমানবন্দরে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হলো এক ব্যক্তির

 

যার ফলে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজের চিকিৎসা পরীক্ষা নিয়ে অনেকেই চিন্তিত রয়েছেন। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় করোনা সংক্রমণে আক্রান্ত সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে । শুক্রবার নতুন করে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ঘাটাল পৌরসভা এলাকায় তিনটি ও মেদিনীপুর সদর ব্লকের গুড়গুড়ি পাল এলাকায় একটি মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন ঘোষণা করেছে জেলাশাসক।

 

ওই চারটি জায়গায় ১৬ ই জানুয়ারি থেকে ২২ শে জানুয়ারি পর্যন্ত বিধিনিষেধ জারি থাকবে বলে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার জেলাশাসক রেশমি কোমল জানিয়েছেন।জেলার বড় হাসপাতালে এক সঙ্গে একাধিক চিকিৎসক ও নার্স করোনা সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় অনেকেই চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন বলে জানান।

 

উল্লেখ্য,মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ১২২ জন চিকিৎসক নার্স করোনা আক্রান্ত।  মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ ও  হাসপাতালে ১২২ জন ডাক্তার ও নার্স করোনা সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েছেন । যার ফলে জটিল অস্ত্রোপচারের কাজ করতে একটু সমস্যা দেখা দিয়েছে।

 

তবে চিকিৎসা পরিসেবা ঠিকভাবে চলছে বলে জানালেন মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডাক্তার পঞ্চানন কুন্ডু ।তিনি বলেন একসঙ্গে ১২২ জন ডাক্তার ও নার্স করোনা সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েছে। সেই সঙ্গে আরও ২৪ জন ডাক্তার ও নার্সের করোনা সংক্রমনের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। যার ফলে কিছুটা সমস্যা হলেও চিকিৎসা পরিষেবা ঠিকভাবে চলছে। কিন্তু জটিল অস্ত্রপচারে ক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে কার্যত তিনি স্বীকার করে নিয়েছেন।