পুরভোটে আমরা কোথাও জোর করে জিততে চাই না, বললেন সৌগত

জিততে

পুরভোটে আমরা কোথাও জোর করে জিততে চাই না, বললেন সৌগত। আসন্ন  পুরভোটের আগে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় জানিয়ে দিলেন, এই ‘ভুল’ আর হবে না। তিনি বলছেন, জোর-জবরদস্তির কোনও প্রয়োজন নেই। এমনকী দলীয় কর্মীরা পুরভোটে জোর করে ভোট করানোর চেষ্টা করলে, তাদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

 

বিধাননগর পুরভোটের ইস্তাহার প্রকাশের অনুষ্ঠানে রীতিমতো আত্মবিশ্বাসী সৌগত। তিনি বললেন, ‘বিধাননগরে যা কাজ হয়েছে, জবরদস্তির দরকার নেই।’ এদিন তিনি আরও বললেন, ‘আমরা কোথাও জোর করে জিততে চাই না। দলের তরফে নীতি স্পষ্ট করা হয়েছে। পঞ্চায়েত ভোটে জবরদখল করা হয়েছিল, তার প্রভাব পড়েছিল ২০১৯-এর লোকসভা ভোটে।’ অর্থাৎ অতীতের ভুল শোধরানোর পথে তৃণমূল, তা সাংসদের কথায় স্পষ্ট।

 

সৌগত বলছেন, আসন্ন ২০২৪ লোকসভা নির্বাচন অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাঁর কথায়, ‘কয়েকটা পুরসভা জেতার চেয়ে, আমাদের কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ লোকসভা ভোটে ভালো রেজাল্ট করা। দলের সাংগঠনিক জেলা সভাপতিদের বলে দেওয়া হয়েছে। তারা মিটিং করে নীচের স্তরে জানিয়ে দিচ্ছেন। এর ফলে ভোটে কোনও প্রভাব পড়বে না।

 

কারণ, মমতা ব্যানার্জির কোনও বিকল্প নেই। ঘাসফুল সাংসদের কথায় দু’টো বিষয় স্পষ্ট। এক, পুরসভা নির্বাচন নিয়ে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী তাঁরা। আর দুই, দলের পাখির চোখ এখন ২০২৪ লোকসভা নির্বাচন।

 

আর ও পড়ুন    উদ্ধার বিরল প্রজাতির তোতা পাখি, গ্রেফতার আন্তর্জাতিক পাখি পাচারকারী

 

উল্লেখ্য, বিধাননগর পুরভোটের ইস্তাহার প্রকাশের অনুষ্ঠানে রীতিমতো আত্মবিশ্বাসী সৌগত। তিনি বললেন, ‘বিধাননগরে যা কাজ হয়েছে, জবরদস্তির দরকার নেই।’ এদিন তিনি আরও বললেন, ‘আমরা কোথাও জোর করে জিততে চাই না। দলের তরফে নীতি স্পষ্ট করা হয়েছে। পঞ্চায়েত ভোটে জবরদখল করা হয়েছিল, তার প্রভাব পড়েছিল ২০১৯-এর লোকসভা ভোটে।’ অর্থাৎ অতীতের ভুল শোধরানোর পথে তৃণমূল, তা সাংসদের কথায় স্পষ্ট।

 

সৌগত বলছেন, আসন্ন ২০২৪ লোকসভা নির্বাচন অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাঁর কথায়, ‘কয়েকটা পুরসভা জেতার চেয়ে, আমাদের কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ লোকসভা ভোটে ভালো রেজাল্ট করা। দলের সাংগঠনিক জেলা সভাপতিদের বলে দেওয়া হয়েছে। তারা মিটিং করে নীচের স্তরে জানিয়ে দিচ্ছেন। এর ফলে ভোটে কোনও প্রভাব পড়বে না।