পাকিস্তানে ব্যাপক তুষারপাতে আটকে পড়া গাড়িতে নিহত ২১

তুষারপাতে

পাকিস্তানে ব্যাপক তুষারপাতে আটকে পড়া গাড়িতে নিহত ২১। এদের অধিকাংশ পর্যটক। নিহতদের মধ্যে অন্তত ১০ শিশু রয়েছে। বরফে ঢাকা রাস্তা পরিষ্কারে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী কাজ শুরু করতে যাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। ব্যাপক সংখ্যক লোক হঠাৎ করে সেখানে ভ্রমণে যাওয়ায় সংকট দেখা দেয়।

 

পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলে ব্যাপক তুষারপাতে গাড়িতে আটকা পড়ে অন্তত ২১ জন মারা গেছেন। তুষারপাতে হাজার খানেক গাড়ি আটকা পড়ে। এদের অধিকাংশ পর্যটক। তারা পাহাড়ের ওপরে মুররি শহরে তুষার পড়ার দৃশ্য দেখতে রওনা হয়েছিলেন। সূত্রের খবরে এমনটি জানানো হয়েছে। যদিও ব্যাপক তুষারপাতের কারণে শনিবার এলাকাটিকে বিপদজনক ঘোষণা করে স্থানীয় প্রশাসন। নিহতদের মধ্যে অন্তত ১০ শিশু রয়েছে।

 

বরফের কবলে পড়ে গাড়িতে আটকা পড়ে এ ঘটনায় একজন পুলিশ সদস্য তার স্ত্রী ও ছয় সন্তানসহ মারা গেছেন। এ ছাড়া অপর একটি পরিবারের পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। বরফে ঢাকা রাস্তা পরিষ্কারে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী কাজ শুরু করতে যাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেইখ রাশিদ বলেছেন, ব্যাপক সংখ্যক লোক হঠাৎ করে সেখানে ভ্রমণে যাওয়ায় সংকট দেখা দেয়।

 

আর ও  পড়ুন    ভ্রমণকারীদের নৌকায় পাহাড় ধসে নিহত ৬, আহত ৩২

 

গত কয়েক দিনে পাকিস্তানিদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বরফ পড়ার দৃশ্যের ছবি ও ভিডিওর বন্যা বয়ে যায়। ইসলামাবাদের উত্তরাঞ্চলের পার্বত্য শহর মুররিতে এবার তুষারপাতের খবর জানাজানি হওয়ার পর কয়েকদিনে এক লাখের বেশি ব্যক্তিগত গাড়ি সেখানে যায়। শুক্রবার স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, পর্যটকের ভিড় এত বেশি ছিল যে পথেই থেমে থাকতে হচ্ছিল তাদের। ব্যাপক তুষারপাতের কারণে শনিবার এলাকাটিকে বিপদজনক ঘোষণা করে স্থানীয় প্রশাসন।

 

দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সড়ক পরিষ্কার এবং আটকা পড়া লোকজনকে উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছে। প্রসঙ্গত, পাকিস্তানের আবহাওয়া বিভাগ ৬-৯ জানুয়ারি মুরি ও গালিয়াতে ভারি তুষারপাতের পূর্বাভাস আগেই দিয়েছিল। তারপরেও একসঙ্গে বহু পর্যটক প্রাণ হারালেন।