পুজোর দিনগুলিতে পছন্দের খাবারে রাখুন নারকেল বরফি

দিনগুলিতে

পুজোর দিনগুলিতে পছন্দের খাবারে রাখুন নারকেল বরফি ।  শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর মরসুম। পূজো মানেই নানা জাতের খাবারের সমারোহ। আর নারিকেলের তৈরি যেকোনো মিষ্টি খাবার মানেই স্বাদে অনন্য। নারিকেল দিয়ে নাড়ু, হালুয়া, পায়েশ, পিঠা আরও কত কী তৈরি করা যায়। এছাড়া নারিকেলের বরফিও একটি সুস্বাদু খাবার। মিষ্টি খেতে যারা পছন্দ করেন, তারা চাইলে ঝটপট তৈরি করে নিতে পারেন নারিকেলের বরফি। এটি তৈরিতে যেমন সহজ তেমন কম উপকরণ দরকার হয়।

 

প্রয়োজনীয় উপকরণ

১. নারিকেল বাটা ৪ কাপ

২. ঘন দুধ ২ কাপ

৩. সুজি ৪ টেবিল চামচ

৪. ঘি ১ কাপ

৫. চিনি ২ কাপ

৬. এলাচ গুঁড়া ৪ টি

৭. বাদাম কুচি ২ টেবিল চামচ

৮. কিশমিশ ২ টেবিল চামচ।

 

আর ও  পড়ুন  পুজোয় বাড়িতে তৈরি করুন লোভনীয় ছানার কোফতা কালিয়া 

 

প্রস্তুত পদ্ধতি

প্রথমেই প্যান গরম করে তাতে ঘি দিয়ে দিন। এরপর ঘি গরম হলে তাতে সুজি দিয়ে ভেজে নিন। এরপর তাতে নারিকেল বাটা দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভেজে নিন। নারিকেল ভাজা হলে তাতে দুধ, চিনি, বাদাম কুচি, কিশমিশ দিয়ে নাড়তে থাকুন। এবার মিশ্রণটি ঘন হয়ে আঠালো হয়ে এলে এলাচ গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে নিন। এরপর প্লেটে ঘি মেখে তাতে ঢেলে ছড়িয়ে নিন। এরপর পছন্দসই আকারে কেটে তার উপরে কিশমিশ ও বাদাম দিয়ে পরিবেশন করুন।

 

উল্লেখ্য, শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর মরসুম। পূজো মানেই নানা জাতের খাবারের সমারোহ। আর নারিকেলের তৈরি যেকোনো মিষ্টি খাবার মানেই স্বাদে অনন্য। নারিকেল দিয়ে নাড়ু, হালুয়া, পায়েশ, পিঠা আরও কত কী তৈরি করা যায়। এছাড়া নারিকেলের বরফিও একটি সুস্বাদু খাবার। মিষ্টি খেতে যারা পছন্দ করেন, তারা চাইলে ঝটপট তৈরি করে নিতে পারেন নারিকেলের বরফি।

 

এটি তৈরিতে যেমন সহজ তেমন কম উপকরণ দরকার হয়।  প্রথমেই প্যান গরম করে তাতে ঘি দিয়ে দিন। এরপর ঘি গরম হলে তাতে সুজি দিয়ে ভেজে নিন। এরপর তাতে নারিকেল বাটা দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভেজে নিন। নারিকেল ভাজা হলে তাতে দুধ, চিনি, বাদাম কুচি, কিশমিশ দিয়ে নাড়তে থাকুন। এবার মিশ্রণটি ঘন হয়ে আঠালো হয়ে এলে এলাচ গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে নিন। এরপর প্লেটে ঘি মেখে তাতে ঢেলে ছড়িয়ে নিন। এরপর পছন্দসই আকারে কেটে তার উপরে কিশমিশ ও বাদাম দিয়ে পরিবেশন করুন।

 

প্রথমেই প্যান গরম করে তাতে ঘি দিয়ে দিন। এরপর ঘি গরম হলে তাতে সুজি দিয়ে ভেজে নিন। এরপর তাতে নারিকেল বাটা দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভেজে নিন। নারিকেল ভাজা হলে তাতে দুধ, চিনি, বাদাম কুচি, কিশমিশ দিয়ে নাড়তে থাকুন। এবার মিশ্রণটি ঘন হয়ে আঠালো হয়ে এলে এলাচ গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে নিন। এরপর প্লেটে ঘি মেখে তাতে ঢেলে ছড়িয়ে নিন। এরপর পছন্দসই আকারে কেটে তার উপরে কিশমিশ ও বাদাম দিয়ে পরিবেশন করুন। নারিকেল দিয়ে নাড়ু, হালুয়া, পায়েশ, পিঠা আরও কত কী তৈরি করা যায়। এছাড়া নারিকেলের বরফিও একটি সুস্বাদু খাবার। মিষ্টি খেতে যারা পছন্দ করেন, তারা চাইলে ঝটপট তৈরি করে নিতে পারেন নারিকেলের বরফি।

 

প্রথমেই প্যান গরম করে তাতে ঘি দিয়ে দিন। এরপর ঘি গরম হলে তাতে সুজি দিয়ে ভেজে নিন। এরপর তাতে নারিকেল বাটা দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভেজে নিন। নারিকেল ভাজা হলে তাতে দুধ, চিনি, বাদাম কুচি, কিশমিশ দিয়ে নাড়তে থাকুন। এবার মিশ্রণটি ঘন হয়ে আঠালো হয়ে এলে এলাচ গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে নিন। এরপর প্লেটে ঘি মেখে তাতে ঢেলে ছড়িয়ে নিন। এরপর পছন্দসই আকারে কেটে তার উপরে কিশমিশ ও বাদাম দিয়ে পরিবেশন করুন।