প্রতি বছর কেন একই দিনে পড়ে বিশ্বকর্মা পুজো?

বছর
বছর

প্রতি বছর কেন একই দিনে পড়ে বিশ্বকর্মা পুজো? পুরাণ মতে গোটা বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের নকশা তৈরি করেছিলেন ব্রহ্মাপুত্র বিশ্বকর্মা । এমনকী দেবতাদের প্রাসাদের নির্মাণ করেছিলেন স্বয়ং বিশ্বকর্মা। তাই তিনি দেবশিল্পী নামেও পরিচিত।

 

আরও উন্নত ভবিষ্যৎ, নিরাপদ কাজের পরিস্থিতি এবং নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য কারাখানা, শিল্প প্রতিষ্ঠান, দোকান এবং যন্ত্রপাতি আছে এরকম সব স্থানেই বিশ্বকর্মা পুজো করা হয়।

 

হিন্দু ধর্মে সব দেব -দেবীর পুজো তিথি মেনেই করার রীতি। আর সেই তিথি অনুযায়ী পড়ে পুজোর তারিখ। তবে বিশ্বকর্মা পুজো কিন্তু মূলত একই দিনে উদযাপন হয় প্রতি বছর। প্রায় প্রতি বছরই বিশ্বকর্মা পুজো পড়ে ১৭ সেপ্টেম্বর। কয়েক বছর তা না হয়ে পড়ে ১৮ সেপ্টেম্বর।

 

হিন্দু ধর্মে সব দেব -দেবীর পুজোর তিথি স্থির হয় চন্দ্রের গতি প্রকৃতির উপর ভিত্তি করে। কিন্তু শুধুমাত্র বিশ্বকর্মা পুজোর তিথি স্থির করা হয়, সূর্যের গতি প্রকৃতির উপর নির্ভর করে। যখন সূর্য সিংহ রাশি থেকে কন্যা রাশিতে গমন করে, তখন সময় আসে এই উত্তরায়ণের। মনে করা হয়, সেই সময়ই দেবতারা নিদ্রা থেকে জেগে ওঠেন এবং বিশ্বকর্মা পুজোর আয়োজন করা হয়।

 

আর ও পড়ুন    দিনভর চলবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি, কবে থেকে উন্নতি হবে আবহাওয়ার?

 

শুধু তাই নয়, হিন্দু পঞ্জিকার দুই মত- সূর্য সিদ্ধান্ত এবং বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত উভয়ই এই পুজোর ক্ষেত্রে একমত।  এই বিশেষ দিনটি ভারতীয় সৌর বর্ষপঞ্জি এবং বঙ্গাব্দের ভাদ্র মাসের শেষ দিন। এই ভাদ্র সংক্রান্তির আগেই বাংলা পঞ্জিকাতে ৫ মাসের উল্লেখ মেলে, যার দিন সংখ্যা মোট ১৫৬ দিন। তাই বিশ্বকর্মা পুজোর বাংলা তারিখটি, ইংরাজি ক্যালেন্ডারে ১৭ সেপ্টেম্বর পড়ে।

 

কোনও কোনও বছর, উল্লেখিত ৫ মাসের মধ্যে যদি ২৯ কিংবা ৩২ দিন থাকে কোনও মাসে, একমাত্র সেক্ষেত্রে বিশ্বকর্মা পুজোর তারিখ পরিবর্তন হয়। তবে সেটি খুবই ব্যতিক্রমী ঘটনা। ২০১৯ সালে বিশ্বকর্মা পুজো উদযাপিত হয়েছিল ১৮ সেপ্টেম্বর।

 

উল্লেখ্য, হিন্দু ধর্মে সব দেব -দেবীর পুজো তিথি মেনেই করার রীতি। আর সেই তিথি অনুযায়ী পড়ে পুজোর তারিখ। তবে বিশ্বকর্মা পুজো কিন্তু মূলত একই দিনে উদযাপন হয় প্রতি বছর। প্রায় প্রতি বছরই বিশ্বকর্মা পুজো পড়ে ১৭ সেপ্টেম্বর। কয়েক বছর তা না হয়ে পড়ে ১৮ সেপ্টেম্বর। বছর