বিরাট কোহলির মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার ১

হুমকি

বিরাট কোহলির মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার ১। টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপের সুপার ১২ পর্বে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ১০ উইকেটে হেরে যায় ভারতীয় ক্রিকেট দল। তারপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় বিরাট কন্যা আক্রমণের মুখে পড়ে।

 

বিরাট কোহলির ৯ মাসের শিশুকন্যাকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে আজ হায়দরাবাদ থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে মুম্বই পুলিশের সাইবার সেল। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তির নাম রামনাগেশ আলিবাথিনি। বয়স ২৩ বছর। তাঁকে মুম্বই নিয়ে আসা হচ্ছে। দলের সতীর্থ মহম্মদ শামির পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিরাট কোহলির ৯ মাসের মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হল! ৩০ অক্টোবর রাত ১১.৫৫ মিনিটে এক টুইট ব্যবহারকারী কোহলির মেয়ে ভামিকাকে ধর্ষণের হুমকি দিয়েছেন।

 

একটি টুইটের মাধ্যমে এই কথাটি প্রকাশ করে। এরপরেই কোহলির সমর্থকরা টুইটের তীব্র বিরোধিতা করতে থাকেন। জানা গিয়েছে, রামনাগেশ পেশায় একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়র। ইতিপূর্বে তিনি একটি ফুড ডেলিভারি অ্যাপের হয়ে কাজ করতেন। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পরাজয়ের পর টিম ইন্ডিয়ার তারকা পেসার মহম্মদ সামিও একইরকমভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় কুরুচিকর আক্রমণের মুখে পড়েছিলেন। সেইসময় সামির দিকে সহমর্মিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন বিরাট কোহলি। ধর্মীয় বৈষম্যের বিরুদ্ধে তিনি প্রতিবাদও করেছিলেন। এরপর @Criccrazyygirl নামের একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বিরাট এবং অনুষ্কার ৯ মাসের মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দেয়।

 

আর ও পড়ুন  বিশ্ব বিজ্ঞান দিবস পালিত হয় কেন? জানুন এর গুরুত্ব

 

যদিও এই অ্যাকাউন্টটি বর্তমানে ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে। ইতিপূর্বে বিরাট কন্যা ভামিকা কোহলিকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার প্রতিবাদে গর্জে উঠেছিল দিল্লি মহিলা কমিশন এবং ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিকে অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবিও তোলা হয়। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পরাজয়ের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় মহম্মদ সামিকে কটাক্ষের প্রতিবাদে গর্জে উঠেছিলেন বিরাট কোহলি।

 

তিনি বলেছিলেন, ‘আমরা খেলার জন্য মাঠে নামি। আশা করছি, আমরা যারা সোশ্যাল মিডিয়ায় রয়েছি, তাঁরা একেবারেই মেরুদণ্ডহীন নই। এটা লোকজনের কাছে বিনোদনের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটা অত্যন্ত দুঃখের বিষয়। বাইরের লোকজনের হতাশা থেকে এইসব নাটক তৈরি হচ্ছে।’ ‘আমরা ২০০ শতাংশ সামির পাশেই দাঁড়াব।

 

এই দলের মধ্যে আমাদের ভ্রাতৃত্বের পরিবেশ কখনই নষ্ট হতে দেব না।’ চলতি টি-২০ বিশ্বকাপ থেকে ইতিমধ্যেই ছিটকে গিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। প্রথম দুটো ম্যাচে পরপর পাকিস্তান এবং নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে সেমিফাইনালে যাওয়ার অঙ্ক অনেকটাই কঠিন করে ফেলেছিল টিম ইন্ডিয়া। এরপর আফগানিস্তান, স্টল্যান এবং নামিবিয়ার কাছে জয়লাভ করলেও নে রান রেটে ভারত আর সেকেন্ড বয় হতে পারেনি। ফলে নক আউট পর্বে ওঠার আগেই বিদায় নিতে হয়েছে কোহলি ব্রিগে়ডকে।

 

 

অনেকে বলতে থাকেন। এ ঘটনায় কোহলি এখন পর্যন্ত মুখ খোলেননি। তবে এর আগে তার স্ত্রীর প্রতি করা বাজে মন্তব্যের জেরে সরাসরি ইনস্টাগ্রামে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন কোহলি। লিখেছিলেন, ‘যারা নারীদের সম্মান দিতে জানে না, তারা নিজেদের কিভাবে শিক্ষিত মানুষ হিসেবে দাবি করে। একবার যদি তাদের মা, বোন, স্ত্রী, মেয়েকে নিয়ে সরাসরি এমন জঘন্য মন্তব্য করা হয়, তাহলে তাদের কেমন লাগবে।’