গোয়ায় নতুন ভোরের ডাক দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ভোরের

গোয়ায় নতুন ভোরের ডাক দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়্। বাংলার পর  এবার ভিন রাজ্য দখল্লের লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল্কংগ্রেস।আর সেই লক্ষ্যে এবার গোয়া সফরে চলেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গোয়া সফরের আগে তাতপর্যপূর্ণভাবে  টুইট করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

 

শনিবার সকালে করা টুইটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়  বলেছেন, বিজেপির বিভাজনের রাজনীতির বিরুদ্ধে গোয়ার মানুষকে একজোট হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এদিন টুইট করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, আগামী ২৮ অক্টোবর তিনি প্রথমবারের জন্য গোয়ায় যাবেন। তিনি তার আগে সব ব্যক্তি, সংগঠন এবং রাজনৈতিক দলকে বিজেপির বিভাজনের রাজনীতিকে পরাজিত করার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, গত ১০ বছর ধরে মানুষ কষ্ট ভোগ করছে।

 

মুখ্যমন্ত্রী এদিন টুইটে বলেছেন, সবাই একসঙ্গে মিলে নুতন সরকার গঠনের মাধ্যমে গোয়ায় নতুন ভোরের সূচনা করতে হবে।  যে সরকার সত্যিকারের জনগণের সরকার হবে, জনগণের আকাঙ্খাগুলি বাস্তবায়নের জন্য প্রতিশ্রুতি বদ্ধ হবে। উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গে জয়ের পরেই ত্রিপুরা ও গোয়ায় জয়ের টার্গেট নেয় তৃণমূল।  তৃতীয়বারের জন্য পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় আসে তৃণমূল।

 

তারপরেই ত্রিপুরা এবং গোয়ার মতো রাজ্য জয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে তৃণমূল। দুই রাজ্যে ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই বিজেপিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, যেসব রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় আছে, সেইসব রাজ্যে ক্ষমতা দখলের জন্য ঝাঁপাবে তৃণমূল। তবে এখনও পর্যন্ত ত্রিপুরা এবং গোয়ায় কংগ্রেসের সংগঠন ভাঙিয়েই তৃণমূল নিজেদের সংগঠনকে শক্তিশালী করেছে ও করছে। ত্রিপুরার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেত্রী সুম্মিতা দেব কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পরেই তাঁকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে রাজ্যসভার সদস্য করে তৃণমূল।

 

অন্যদিকে গতমাসে কলকাতায় গিয়ে তৃণমূলে যোগ দেন গোয়ার ৭ বারের কংগ্রেস বিধায়ক তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লুইজিনো ফেলেইরো। ত্রিপুরায় প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস না হলেও গোয়ায় বিজেপির প্রধান বিরোধী কংগ্রেসই। গোয়ায় আগেকার বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস ১৭ টি এবং বিজেপি ১৩ টি আসন দখল করলেও শেষ পর্যন্ত কংগ্রেসকে ভাঙিয়ে গোয়ায় ক্ষমতা দখল করে বিজেপি।

 

আরও  পড়ুন  আবার বেড়ে গেলো পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম  

 

ইতিমধ্যে লুইজিনো ফেলেইরোকে তৃণমূলে জাতীয় সহসভাপতি করা হয়েছে। শুক্রবার এই সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন তৃণমূলের  সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরেই লুইজিনো ফেলেইরো তাঁর প্রতি বিশ্বাস রাখার জন্য দল এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

 

সঙ্গে বিজেপির বিভাজনের রাজনীতির বিরুদ্ধে লড়াই করার অঙ্গীকার করেছেন তিনি। উল্লেখ্য,  ২০২২ সালে  গোয়ায় বিধানসভা নির্বাচন হতে চলেছে। বিজেপির বিরুদ্ধে কংগ্রেস ছাড়াও তৃণমূল এবং আপ আলাদা ভাবে লড়াই করতে চলেছে।