উত্তরবঙ্গে ভয়াবহ রেল দুর্ঘটনায় মৃত ৩, বহু হতাহতের আশঙ্কা

হতাহতের

উত্তরবঙ্গে ভয়াবহ রেল দুর্ঘটনায় মৃত ৩, বহু হতাহতের আশঙ্কা। যদিও বেসরকারি মতে মৃতের সংখ্যা সাত।  সাম্প্রতিক সময়ের সবথেকে বড় রেল দুর্ঘটনা বাংলায়। এই ভয়াবহ রেল দুর্ঘটনা ঘটেছে উত্তরবঙ্গের ময়নাগুড়ির কাছে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টে নাগাদ জলপাইগুড়ি থেকে গুয়াহাটি-গামী বিকানের এক্সপ্রেসটি লাইনচ্যুত হয়। দুর্ঘটনায় একাধিক যাত্রীর মৃত্যুর আশঙ্কা রয়েছে বলেই জানা যাচ্ছে। মোট ১২টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে বলেই সূত্রের খবর। আহত হয়েছেন বহু যাত্রী। ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন রেলের আধিকারিক, দমকল বাহিনী।

 

শুরু হয়েছে উদ্ধারের কাজ। যদিও হতাহতের সংখ্যা এখনও জানা যায়নি। দোমোহনি এলাকায় ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলেই জানা যাচ্ছে। এক্সপ্রেসটির বেশ কয়েকটি কামরা লাইনচ্যুত হয়ে যায়। এখনও পর্যন্ত ৫০ জন যাত্রীর মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। দুর্ঘটনার সময় ট্রেনটির গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার ছিল বলে প্রাথমিক ভাবে খবর পাওয়া গিয়েছে। দুর্ঘটনার পর ট্রেনের একাধিক কামরা প্রায় দুমড়ে গিয়েছে। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় উদ্ধারকাজ শুরু হয়েছে সেখানে। সন্ধে নেমে আসায় উদ্ধারকাজে কার্যত সমস্যা হচ্ছে বলেই জানিয়েছে প্রশাসন। স্থানীয় বাসিন্দারাও উদ্ধার কার্যে হাত লাগিয়েছেন।

 

জলপাইগুড়ির জেলাশাসক জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত ৭ জন যাত্রীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত সাত জন ট্রেন যাত্রীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে৷ আহত অবস্থায় ১৬ জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ তাঁদের মধ্যে ১৫ জনের অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে৷ সবমিলিয়ে দুর্ঘটনাস্থল থেকে আড়াইশো জন যাত্রীকে উদ্ধার করা হয়৷ দুর্ঘটনায় মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে ট্যুইট করেছেন রেলমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও৷ আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেছেন তিনি৷

 

ইতিমধ্যেই মৃতদের পরিবারকে পাঁচ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব৷ গুরুতর আহতদের দেওয়া হবে এক লক্ষ টাকা করে৷ অল্প আহতদের ২৫ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে৷ ট্যুইট করে রেলমন্ত্রী জানিয়েছেন, দুর্ঘটনার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীকে বিস্তারিত জানিয়েছেন তিনি৷ আগামিকাল সকালে নিজেও দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছবেন রেলমন্ত্রী৷ তিনি নিজে উদ্ধারকাজের তদারকি চালাচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী৷

 

তিনি জানিয়েছেন, বিকানের এক্সপ্রেসের মোট বারোটি কামরা লাইনচ্যুত হয়েছে৷ দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ খতিয়ে দেখতে উচ্চপর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে রেল৷ দুর্ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং ডিজি সিকিউরিটি৷ নর্থ ইস্ট ফ্রন্টিয়ার রেলের জেনারেল ম্যানেজারও দুর্ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন৷ প্রাথমিক ভাবে রেল কর্তাদের অবশ্য অনুমান, রেল লাইনে কোনও ত্রুটি থাকার কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে৷

 

আর ও পড়ুন     চিকিৎসকের তৎপরতায় বিরল রোগ থেকে প্রাণে বাঁচলেন ৫৬ বছরের এক ব্যক্তি

 

অন্যদিকে এই ঘটনার খবর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে যাওয়ার পরেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন তিনি। নবান্নে সুত্রের খবর, আজ বৃহস্পতিবার সাড়ে চারটে থেকে করোনা সংক্রান্ত বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গেই এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠক কিছুটা এগোতেই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ভয়াবহ এই দুর্ঘটনার খবর আসে।

 

সঙ্গে সঙ্গেই রাজ্য সরকারি আধিকারিকদের থেকে গোটা বিষয়টির খোঁজ নেন মমতা। আর তা আসতেই রীতিমত উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। এমনকি বৈঠকের মাঝপথেই রাজ্য প্রশাসনকে ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দেন প্রশাসনিক প্রধান। উত্তরবঙ্গের আইজিকে ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশও দেন তিনি। এছাড়াও উত্তরবঙ্গের এসপি সহ সমস্ত উচ্চপদস্থ আধিকারিকদেরও যাওয়ার নির্দেশ। আর এই ততপরতা দেখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘটনার বিস্তারিত খোঁজ মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকেই নেন।

 

এমনকি সবরকম ভাবে তাঁকে সাহায্যের আশ্বাসও দেন তিনি। Ads by জানা যাচ্ছে, বৈঠকের মাঝেই হাসপাতাল থেকে শুরু করে রাজ্য প্রশাসনকে উদ্ধারকাজে ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দেন মমতা। আর এরপরেই রাজ্য প্রশাসনের তরফে জোর ততপরতা শুরু হয়। ৫১টি অ্যাম্বুলেস ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। এছাড়াও উত্তরবঙ্গের সমস্ত হাসপাতালকে তৈরি রাখা হয়েছে। সেখানে একের পর এক আহত যাত্রীদের উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।