দিনহাটায় উদ্ধার হলো একটি ইউরেশিয়ান বিটার্ন

হলো

দিনহাটায় উদ্ধার হলো একটি ইউরেশিয়ান বিটার্ন। কোচবিহারের দিনহাটা এলাকায় স্থানীয় বাসিন্দারা পাখিটিকে উদ্ধার করেন।  জানা গিয়েছে,  সাধারণত দক্ষিণ আফ্রিকায় এই পাখি দেখতে পাওয়া যায় বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এলাকার এক ব‍্যক্তি পাখিটিকে দেখতে পান। স্থানীয় বাসিন্দারা পাখিটিকে উদ্ধার করে একটি ডালি দিয়ে ঢেকে রাখে।

 

খবর পেয়ে   পাখি দেখতে ভিড় জমে যায়। পাখিটির ঠোঁট বেশ সরু এবং ধারালো এবং অনেকটাই লম্বা। পাখিটির কাছে এলে ময়ূরের মতো পেখম মেলে এবং ফুলে যায়। পাখিটিকে উদ্ধার করে কোচবিহারের  বনদপ্তর এ খবর দেয় গ্রামবাসী। বনদপ্তর এর কর্মী এসে পাখিটিকে নিয়ে যায়।

 

বনদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে শীতের সময় বহু পরিযায়ী পাখি উত্তরবঙ্গে আসে সেরকমই ইউরেশিয়ান বিটার্ন প্রজাতির এই পাখিটি এসে থাকতে পারে। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে পাখিটি কোনভাবে জখম হয়েছে চিকিৎসকদের পরামর্শ নেয়া হচ্ছে আপাতত পাখিটিকে পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে সম্পূর্ণ সুস্থ হওয়ার পর সেটিকে কোন জঙ্গলে ছাড়া হবে তবে আপাতত তার অবস্থা স্থিতিশীল।

 

আর ও পড়ুন    যৌন সংসর্গে অনীহা দূর করবে এই খাবারগুলি

 

উল্লেখ্য, কোচবিহার জেলার  দিনহাটায় উদ্ধার হলো একটি ইউরেশিয়ান বিটার্ন। কোচবিহারের দিনহাটা এলাকায় স্থানীয় বাসিন্দারা পাখিটিকে উদ্ধার করেন।  জানা গিয়েছে,  সাধারণত দক্ষিণ আফ্রিকায় এই পাখি দেখতে পাওয়া যায় বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এলাকার এক ব‍্যক্তি পাখিটিকে দেখতে পান। স্থানীয় বাসিন্দারা পাখিটিকে উদ্ধার করে একটি ডালি দিয়ে ঢেকে রাখে। খবর পেয়ে   পাখি দেখতে ভিড় জমে যায়। পাখিটির ঠোঁট বেশ সরু এবং ধারালো এবং অনেকটাই লম্বা।

 

পাখিটির কাছে এলে ময়ূরের মতো পেখম মেলে এবং ফুলে যায়। পাখিটিকে উদ্ধার করে কোচবিহারের  বনদপ্তর এ খবর দেয় গ্রামবাসী। বনদপ্তর এর কর্মী এসে পাখিটিকে নিয়ে যায়। বনদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে শীতের সময় বহু পরিযায়ী পাখি উত্তরবঙ্গে আসে সেরকমই ইউরেশিয়ান বিটার্ন প্রজাতির এই পাখিটি এসে থাকতে পারে। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে পাখিটি কোনভাবে জখম হয়েছে চিকিৎসকদের পরামর্শ নেয়া হচ্ছে আপাতত পাখিটিকে পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে সম্পূর্ণ সুস্থ হওয়ার পর সেটিকে কোন জঙ্গলে ছাড়া হবে তবে আপাতত তার অবস্থা স্থিতিশীল। পাখি উদ্ধারের  খবর পেয়ে   পাখি দেখতে ভিড় জমে যায়।

 

পাখিটির ঠোঁট বেশ সরু এবং ধারালো এবং অনেকটাই লম্বা। পাখিটির কাছে এলে ময়ূরের মতো পেখম মেলে এবং ফুলে যায়। পাখিটিকে উদ্ধার করে কোচবিহারের  বনদপ্তর এ খবর দেয় গ্রামবাসী। বনদপ্তর এর কর্মী এসে পাখিটিকে নিয়ে যায়। জানা গিয়েছে,  সাধারণত দক্ষিণ আফ্রিকায় এই পাখি দেখতে পাওয়া যায় বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এলাকার এক ব‍্যক্তি পাখিটিকে দেখতে পান। স্থানীয় বাসিন্দারা পাখিটিকে উদ্ধার করে একটি ডালি দিয়ে ঢেকে রাখে।