রোনাল্ডোকে নিয়ে দলের অন্দরে ক্ষোভ

ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডে তিনি যোগ দেওয়ার পর হয়তো মাসখানেক কেটেছে। এর মধ্যেই পর্তুগিজ তারকাকে নিয়ে অসন্তুষ্ট তাঁর সতীর্থরা। রাগের কারণ আর কিছুই নয়, রোনাল্ডোর ( Ronaldo’s ) খাবার মেনু, যা ইদানীং ম্যান ইউয়ের ক্যান্টিনে পাওয়া যাচ্ছে এবং বাকি ফুটবলারদের সেটাই খেতে হচ্ছে।

শরীর নিয়ে রোনাল্ডো ( Ronaldo’s ) বরাবরই সচেতন। তেমনই কড়া নজর রয়েছে খাবারের দিকেও। প্রোটিন-জাতীয় খাবারের উপর তিনি বিশেষ জোর দেন। তাঁর খাবারের ধরন বাকিদের থেকে অনেকটাই আলাদা। জীবনে কোনও দিন তিনি মদ ছুয়ে দেখেননি। সঠিক খাবারই যে তাঁর শক্তির অন্যতম কারণ, এ কথা রোনাল্ডো আগে অনেক বার বলেছেন।

আর ও  পড়ুন    বিস্ফোরক বাবুল সুপ্রিয়, বিজেপির বিরুদ্ধে কী বললেন তিনি ?

ম্যাঞ্চেস্টারে যোগ দেওয়ার পর তিনি খাবারের মেনুতে অক্টোপাস এবং পর্তুগিজ খাবার ‘বালকাহু’ যোগ করতে বলেছেন। ক্লাবের অন্যতম সেরা ফুটবলারের অনুরোধে, সেই খাবার এখন ক্যান্টিনে পাওয়া যাচ্ছে। রোনাল্ডো নিজেও বাকি সতীর্থদের সেই খাবার খেতে অনুরোধ করছেন। কিন্তু অনেকেই সেই খাবার খেতে পারছেন না। বিশেষত, অক্টোপাস নিয়ে বিরোধিতা আসছে সব থেকে বেশি। বাকি ফুটবলাররা নিজের পছন্দের খাবার বদলাতে রাজি নন।

দলের এক সদস্য বলেছেন, ‘ক্রিশ্চিয়ানোর মেনুতে প্রোটিন থাকে। হ্যাম, ডিম, অক্টোপাস নিয়মিত দেখা যায়। কিন্তু বাকিরা কিছুতেই সেই খাবার মুখে তুলতে চাইছে না। রোনাল্ডোর অনুরোধে কয়েকজন পর্তুগিজ খাবার খেয়েছিল। কিন্তু প্রচণ্ড হতাশ হয়েছে ওরা।’ সম্প্রতি এক বিখ্যাত বার্গার-বিপণীতে গিয়েছিলেন রোনাল্ডো। সেখানেও তাঁকে নাকি পছন্দের হ্যাম খেতে দেখা গিয়েছে।

উল্লেখ্যঃ

শরীর নিয়ে রোনাল্ডো বরাবরই সচেতন। তেমনই কড়া নজর রয়েছে খাবারের দিকেও। প্রোটিন-জাতীয় খাবারের উপর তিনি বিশেষ জোর দেন। তাঁর খাবারের ধরন বাকিদের থেকে অনেকটাই আলাদা। জীবনে কোনও দিন তিনি মদ ছুয়ে দেখেননি। সঠিক খাবারই যে তাঁর শক্তির অন্যতম কারণ, এ কথা রোনাল্ডো আগে অনেক বার বলেছেন।

আর ও  পড়ুন    বিস্ফোরক বাবুল সুপ্রিয়, বিজেপির বিরুদ্ধে কী বললেন তিনি ?

ম্যাঞ্চেস্টারে যোগ দেওয়ার পর তিনি খাবারের মেনুতে অক্টোপাস এবং পর্তুগিজ খাবার ‘বালকাহু’ যোগ করতে বলেছেন। ক্লাবের অন্যতম সেরা ফুটবলারের অনুরোধে, সেই খাবার এখন ক্যান্টিনে পাওয়া যাচ্ছে। রোনাল্ডো নিজেও বাকি সতীর্থদের সেই খাবার খেতে অনুরোধ করছেন। কিন্তু অনেকেই সেই খাবার খেতে পারছেন না। বিশেষত, অক্টোপাস নিয়ে বিরোধিতা আসছে সব থেকে বেশি। বাকি ফুটবলাররা নিজের পছন্দের খাবার বদলাতে রাজি নন।