বিকাশ ভবনের ( Bikash Bhaban ) সামনে বিষ খেলেন পাঁচ শিক্ষিকা ( Teacher )

1 220 বিকাশ ভবনের ( Bikash Bhaban ) সামনে বিষ খেলেন পাঁচ শিক্ষিকা ( Teacher )

অভিযোগ, পাঁচজন শিক্ষিকাকে ( Teacher ) ‘বেআইনিভাবে’ অন্যত্র বদলি করা হয়েছে। আর তারই প্রতিবাদে বিকাশ ভবনের ( Bikash Bhaban ) সামনে বিক্ষোভে সামিল। আর সেখানেই পাঁচ শিক্ষিকার ( Teacher ) বিকাশ ভবনের ( Bikash Bhaban ) সামনে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা। আর তা থেকেই শিক্ষক ঐক্যমঞ্চের প্রতিবাদ ঘিরে মঙ্গলবার দুপুরে তুলকালাম শুরু হয়। শিক্ষিকাদের চারজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। প্রতিবাদে শামিল এক শিক্ষিকা ( Teacher ) অনিমা নাথ জানান, “আজ আমরা বিষ খেয়েছি সবাই।

 

আমরা মরে যাব, আমরা বাঁচব না। আমি বৃত্তিমূলক শিক্ষিকা। এ রাজ্যে কিছুই হওয়ার নেই আমাদের।” সূত্রের খবর,এসএসকে ও এমএসকের পাঁচ শিক্ষিকাকে “অনৈতিক” ভাবে বদলি করা হয়ছে বলে অভিযোগ। এরপরই বদলির অস্বচ্ছতার দাবি তুলে রাস্তায় নামে শিক্ষক ঐক্যমঞ্চ। সেখানেই প্রকাশ্যে হাতে বিষের শিশি নিয়ে গলায় ঢেলে দেন পাঁচজন। মুখ থেকে গ্যাঁজলা উঠতে শুরু করে। এরই মধ্যেও সরকারের বিরুদ্ধে তাঁদের ক্ষোভ উগরে দেন শিক্ষিকারা। অভিযোগ, মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলার শিক্ষিকা ফাজিলাকে দক্ষিণ দিনাজপুরে বদলি করে দেওয়া হয়েছে। মুর্শিদাবাদের অপর শিক্ষিকাকে বদলি করে দেওয়া হয়েছে জলপাইগুড়িতে। জ্যোৎস্না টুডু নামে এক শিক্ষিকাকে মেদিনীপুর থেকে বদলি করা হয়েছে জলপাইগুড়িতে। শিখা দাসকে পূর্ব মেদিনীপুর থেকে বদলি করা হয়েছে দক্ষিণ দিনাজপুরে বদলি করা হয়েছে। পুতুল মণ্ডল নামে এক শিক্ষিকাকে দক্ষিণ ২৪ পরগনা থেকে কেচাবিহারে বদলি করা হয়েছে। বৃত্তিমূলক শিক্ষিকাদের এই বদলি অনৈতিক বলে দাবি করছে শিক্ষক ঐক্য়মঞ্চ।

আন্দোলনকারী শিক্ষিকাদের দাবি, এ ভাবে চলতে পারে না। শিক্ষামন্ত্রী পদত্যাগ করুন, এদিন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর সঙ্গে দেখা করতে বিকাশ ভবনে যান তাঁরা। পুলিশের বাধা পেয়ে পরিস্থিতি এতটা জটিল হয়ে পড়ে বলে অভিযোগ।
এরপরই এদিন বিষের শিশি হাতে নিয়ে একেবারে বিকাশ ভবনের গেটের ভিতর ঢুকে পড়েন শিক্ষিকারা। গলায় বিষ ঢেলে আত্মহত্যার চেষ্টাও করেন। পুলিশ কর্মীরা বাধা দিতে গেলে চরম ধস্তাধস্তির পরিস্থিতি তৈরি হয়। রাস্তা থেকে টেনে হিঁচড়ে ওই শিক্ষিকাদের তোলা হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে। এদিকে বিষপান করে অসুস্থ হয়ে পড়া শিক্ষিকাদের নিয়ে যাওয়া হয় বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালে। সেখানে তাঁদের চিকিৎসা চলছে। গোটা ঘটনা নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন বিজেপি মহিলা মোর্চার সভানেত্রী ও আসানসোলের বিজেপি বিধায়িকা অগ্নিমত্রা পল।

আর ওপড়ুন    শিলিগুড়ির পর্যটনে বিশেষ আকর্ষণ বেঙ্গল সাফারিতে (Bengal Safari) ৪ বছরে ৭ টি বাঘ

তার বক্তব্য, ” কোথায় যাচ্ছি আমরা? শিক্ষিকারা বিকাশ ভবনের ( Bikash Bhaban ) সামনে আত্মহত্যার চেষ্টা করছেন. বিকাশভবনে পুলিসের সামনেই বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন পাঁচজন শিক্ষিকা. অভিযোগ, শিক্ষামন্ত্রী দেখা করছেন না. প্রতিবাদে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত তাঁদের. শিক্ষামন্ত্রী ব্যস্ত ত্রিপুরাতে গণতন্ত্র রক্ষা করতে. এই দৃশ্য দেখা বাকি ছিল। হিংস্র সরকার. তালিবানি মানসিকতা।”