ঠাকুরনগরে স্টেশনে বিজেপির (BJP) রেল অবরোধ

BJP
BJP
1 63 ঠাকুরনগরে স্টেশনে বিজেপির (BJP) রেল অবরোধ
ছবি সংগ্রহে সাইন টিভি

বিজেপির ( BJP ) শহিদ যাত্রায় পুলিশি ধরপাকড় এবং কেন্দ্রীয় জাহাজ প্রতিমন্ত্রী শান্তুনু ঠাকুর সহ বিজেপি ( BJP ) নেতৃত্বকে আটক করার প্রতিবাদে মঙ্গলবার ঠাকুরনগরে স্টেশনে রেল অবরোধ করেন বিজেপি ( BJP ) কর্মীরা। প্রায় আধঘন্টা ধরে চলে অবরোধ। পরে তাদের ছেড়ে দেওয়ার খবর পাওয়ার পরে অবরোধ তুলে নেন বিজেপি কর্মীরা৷ এদিন দমদম বিমানবন্দরে নামার পরেই  শহীদ যাত্রায় যোগ দেওয়ার আগে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী শান্তুনু ঠাকুর বিরাটির কালী মন্দিরে আসেন। এদিন তার সাথে ছিলেন বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার এবং গাইঘাটার বিজেপি বিধায়ক শান্তুনু ঠাকুরও।

আর ও পড়ুন  ঢাকার আর্টিজান জঙ্গি হামলার ঘটনা নিয়ে এবার সিনেমা (Cinema) হচ্ছে বলিউডে (Bollywood)

তার আসার আগেই সেখানে জমায়েত করেছিলেন বিজেপি কর্মীরা। করোনাবিধী উপেক্ষা করায়  বিজেপি কর্মীদের আটক করে এয়ারপোর্ট থানার পুলিশ। এই নিয়ে পুলিশের সাথে বচসায় জড়িয়ে পড়েন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী। বিজেপি কর্মীদের গ্রেপ্তার করায় শান্তুনু ঠাকুর সহ বিজেপির নেতৃত্ব পুলিশের গাড়িতে উঠে পড়েন। পুলিশ তাদের নিয়ে আসেন এয়ারপোর্ট থানায়। শান্তুনু ঠাকুর সহ বিজেপি নেতৃত্বকে পুলিশি আটকের খবর ছড়িয়ে পড়ে মধ্যমগ্রাম, বারাসতে। মধ্যমগ্রাম চৌমাথা, বারাসতের হেলাবটতলায় শহীদ যাত্রা উপলক্ষে বিজেপি কর্মীরা আগে থেকেই জড়ো হয়েছিলেন।দুই জায়গাতেই ব্যাপক পুলিশ এবং র‍্যাফ মোতায়েন করা হয়েছিল। শান্তুনু ঠাকুরকে আটক করায় এদিন বিজেপির শহীদ যাত্রাই হয় নি। এর প্রতিবাদে বিজেপি কর্মীরা মধ্যমগ্রাম থানার সামনে বসে পড়ে বিক্ষোভ দেখান।

 

এদিকে শান্তনু ঠাকুরকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে ঠাকুরনগরে এদিন রেল অবরোধ করেন বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা। প্রায় আধ ঘন্টা অবরোধ চলার পর শান্তনু ঠাকুর সহ বিজেপি নেতৃত্বের জামিনের খবর পেয়ে অবরোধ তুলে নেন কর্মীরা।এই বিষয়ে বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তুনু ঠাকুর বলেন বিজেপি কর্মীদের গ্রেপ্তার করার অর্থই হল আমাকে গ্রেপ্তার করা।

শহীদ যাত্রার কো-কনভেনার প্রসেন পাল বলেন শান্তিপূর্ণ ভাবেই আমরা শহীদ যাত্রার আয়োজন করেছিলাম। কিন্তু পুলিশ কোন রকমের প্ররোচনা ছাড়াই বিজেপি কর্মীদের গ্রেপ্তার করেছে।কেন্দ্রীয় জাহাজ প্রতিমন্ত্রী শান্তুনু ঠাকুরকেও আটক করেছে। এর প্রতিবাদেই  বিজেপি কর্মীরা অবরোধ, বিক্ষোভ দেখিয়েছেন।

এই প্রসঙ্গে বারাসত সাংগঠনিক জেলার তৃণমূলের সভাপতি অশনি মুখোপাধ্যায় বলেন করোনাবিধী উপেক্ষা করে জমায়েত করায় পুলিশ আইন অনুযায়ী ব্যাবস্থা নিয়েছে।