নবরাত্রির ইতিকথা

0
4

নিউজ ডেস্ক, কলকাতা, ১৭ অক্তবর,২০২০: করোনার আবহে উৎসবের মরসুম শুরু হয়ে গিয়েছে। আজ নবরাত্রির প্রথম দিন। ১৭ অক্টোবর থেকে ২৫ শে অক্টোবর পর্যন্ত চলবে এই নবরাত্রি। সাইন টিভির পক্ষ থেকে সকলকে নবরাত্রির শুভেচ্ছা । দেখুন আমাদের বিশেষ প্রতিবেদন নবরাত্রির ইতিকথা।

নবরাত্রি দুর্গা পুজার অন্য একটি নাম। বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে দেবি দুর্গার ষষ্ঠী থেকে দশমী পর্যন্ত পুজার প্রছলন থাকলেও অন্যান্য হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে মহালায়ার পরের দিন প্রতিপদ থেকে নবমী পর্যনছিত৯দিন দেবি দুর্গার পুজার প্রচলন রয়েছে যা নবরাত্রি বা ৯রাত ব্যাপী ব্রত নামে পরিচিত।এই ৯ দিনে দেবীর ৯টী রুপের তথা নবদুর্গার পুজা হয়ে থাকে যা কিনা ৯ টি গাছ।এই ৯ টি গাছ একত্রে দুর্গা পুজায় নবপত্রিকা বা কলাবউ হিসাবে আমরা দেখতে পাই।নবদুর্গার প্রথম রূপটি শৈলপুত্রী, পর্বতের কন্যা। মা শৈলপুত্রী মনোবল বৃদ্ধি করেন। দ্বিতীয় রূপটি ব্রহ্মচারিণী, যিনি ব্রহ্মাকে স্বয়ং জ্ঞান দান করেন, ভক্তকেও ইনি ব্রহ্মপ্রাপ্তি করান। মা ব্রহ্মচারিণী মনোসংযোগ বৃদ্ধি করেন। তৃতীয় রূপটি চন্দ্রঘণ্টা। দেবীদুর্গার মহিষাসুর বধের জন্য দেবরাজ ইন্দ্রের প্রদত্ত ঘন্টা যার মধ্যে গজরাজ ঐরাবতের মহাশক্তি নিহিত ছিল, চন্দ্রের চেয়েও লাবণ্যবতী ইনি। মা চন্দ্রঘণ্টা সাংসারিক সমস্ত কষ্ট থেকে মুক্তি দেন। চতুর্থ রূপ কুষ্মণ্ডা। দুর্বিষহ ত্রিতাপ হল কুষ্মা। আর যিনি এই ত্রিতাপ নিজের উদরে বা অন্ডে ধারণ করেন অর্থাৎ সমগ্র সংসার ভক্ষণ করেন ইনি। মা কুষ্মণ্ডা সুখ ও সমৃদ্ধি দেন।পঞ্চম রূপটি স্কন্দমাতা। দেব সেনাপতি কার্তিকেয় বা স্কন্দের মা। মা স্কন্দমাতা গৃহের যে কোনও রকম অশান্তি নাশ করেন।
ষষ্ঠরূপ কাত্যায়নী। কাত্যায়ন ঋষির আশ্রমে দেবকার্যের জন্য আবির্ভূতা ইনি বৃন্দাবনে দেবী গোপবালা রূপে পূজিতা। ব্রজের গোপবালারা এই কাত্যায়নীর কাছে প্রার্থণা করেছিলেন নন্দের নন্দন শ্রীকৃষ্ণকে পতিরূপে পাওয়ার জন্য তাই ব্রজের দুর্গার নাম কাত্যায়নী । মা কাত্যায়নী শত্রু নাশ করেন। সপ্তম রূপ কালরাত্রি। ঋগ্বেদের রাত্রিসুক্তে পরমাত্মাই রাত্রিদেবী। মহাপ্রলয়কালে এই রাত্রিরূপিণী মাতার কোলেই বিলয় হয় বিশ্বের।অনন্ত মহাকাশে নৃত্যরত কালভৈরবের দেহ থেকেই আবির্ভূতা ইনি দেবী যোগনিদ্রা মহাকালিকা বা কালরাত্রি নামে আখ্যাত। মা কালরাত্রি অল্প বয়সে কোনও ফাঁড়া থাকলে তা নাশ করেন। অষ্টম রূপ মহাগৌরী। তিনি সন্তানবত্সলা, শিবসোহাগিনী, বিদ্যুদ্বর্ণা মা দুর্গার প্রসন্ন মূর্তি ।

আরও পড়ুন…নরেন্দ্র সিং তোমর ২০২০’র খাদ্য ও কৃষি সপ্তাহের উদ্বোধন করলেন

কারও বাড়িতে বিবাহজনিত কোনও সমস্যায় এঁর ধ্যান করা খুব ভাল। নবম রূপ সিদ্ধিদাত্রী। অপরূপ লাবণ্যময়ী চতুর্ভুজা, ত্রিনয়নী, প্রাতঃসূর্যের মত রঞ্জিতা যোগমায়া মাহেশ্বরী ইনি সকল কাজে সিদ্ধি প্রদান করেন। মা সিদ্ধিদাত্রী সর্বসিদ্ধিদাত্রী। এরপরেই দশেরার দিন রাবণ বধের মধ্যে দিয়ে শেষ হয় নবরাত্রি। এই দিন সকলে ডান্ডিয়া নাচের মধ্য দিয়ে নবরাত্রি পালন করে।