দুর্গাপুরে মহিলা খুনে গ্রেপ্তার ১

0
7

নিজস্ব সংবাদদাতা,পশ্চিম বর্ধমান,১২ ই অক্টোবর: ৭ অক্টোবর সকালে নিজের বাড়ি থেকে দুর্গাপুরের এক মহিলার নগ্ন দেহ উদ্ধার হয় । পুলিশ প্রাথমিক ভাবে অনুমান করেছিল শারীরিক নির্যাতন করার পর ওই মহিলাকে শ্বাসরুদ্ধ করে খুন করা হয়েছে । পুলিশের সন্দেহ ছিল ওই মহিলার কোনও নিকটাত্মীয় এই হত্যার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে ৷ গভীর রাতে বাড়িতে একা থাকা ওই মহিলা চেনা মানুষ ছাড়া দরজা খুলতেন না এমনটা ধারণা করেই পুলিশি তদন্ত এগোতে থাকে ।

তদন্তে নেমে দুর্গাপুরের বাসিন্দা এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ ৷ সম্পর্কে মৃত মহিলা ওই যুবকের কাকিমা ৷ পুলিশের জেরায় সে তার কাকিমাকে খুনের কথা স্বীকার করে ৷ জেরায় জানায়, সে তার কাকিমাকে খুন করে ধর্ষণ করেছে ৷ তবে ধৃত যুবক এই ঘটনায় একা ছিল না । পুলিশ সূত্রে খবর, এই ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে ওই মহিলার মেজ জামাই ।
জেরায় ধৃত যুবক জানিয়েছে, তার কাকিমার মেজ জামাই ৭ অক্টোবর দুর্গাপুরে এসে তার সাথে দেখা করে ৷ তারা একসঙ্গে মদ্যপানও করে ৷ এরপর তার কাকিমার জামাই তাকে তার কাকিমাকে খুন করার কথা বলে ৷ প্রথমে সে তার কাকিমা খুন করতে রাজি হয়নি ৷ পরে তার জামাইবাবু তাকে রাজি করায় ৷ দু’জনে গভীর রাতে ওই মহিলার বাড়িতে যায় ৷ সেখানে ওই মহিলার মেয়ে জামাই তাকে ডাকে ৷ জামাইয়ের গলার আওয়াজ পেয়ে ওই মহিলা দরজা খুলতেই তার গলা চেপে ধরে তাকে মেঝেতে ফেলে দেয় ধৃত যুবক ৷

পুলিশকে ধৃত যুবক জানিয়েছে, এই মহিলার মেজ মেয়ের জামাই হাতে গ্লাভস পরে শাশুড়ির মৃত্যু নিশ্চিত করতে তার গলা চেপে ধরে ৷ এই মহিলার মৃত্যুর পর ধৃত যুবক তাকে ধর্ষণ করে ৷ এরপর তারা দু’জন সেখান থেকে ধৃত যুবকের বাড়িতে চলে যায় ৷ সেখান তারা আবার মদ্যপান করে । সকালে মৃতের মেজ জামাই নিজের বাড়িতে চলে যায় ৷
তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, মৃত মহিলার মেজ জামাই চাইছিল শাশুড়ির বাড়ি হাতাতে ৷ দুর্গাপুর পৌরনিগমের পক্ষ থেকে রান্নার কাজ করা ওই মহিলা সরকারি প্রকল্পের টাকায় পাকা বাড়ি করেছিলেন ৷ সেই বাড়ি হাতাতেই এই খুন বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে । ঘটনার পর থেকেই পলাতক ওই মহিলার মেজ জামাই ৷ তার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে দুর্গাপুর থানার পুলিশ ।

NO COMMENTS